ছাত্রসমাজ কারও স্বার্থ রক্ষার পাহারাদার হবে না

ঢাকা অফিস :

আন্দোলনের ভয়ে সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখেছে বিএনপির এমন অভিযোগ নাকচ করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের‌ বলেছেন, ছাত্রসমাজ কারও স্বার্থ রক্ষার পাহারাদার হবে না।

রোববার (২৯ আগস্ট) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কারণে দেশের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ক্ষতি হচ্ছে। তাদের পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠদের জীবন বাঁচাতে এই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।

গত শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দাবি করেন, সরকার আন্দোলন ঠেকাতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখেছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রাণঘাতী করোনার বিস্তার রোধে সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময়ে প্রয়োজনীয় বিধিনিষেধ জারি করা হয়। এরই অংশ হিসেবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ন্যায় আমাদের দেশেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার ফলে আমাদের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবনে অপূরণীয় ক্ষতি হলেও তাদের এবং তাদের পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠদের জীবন বাঁচাতে এই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়। এটি করোনার সংক্রমণ রোধে বিশ্বের স্বীকৃত প্রক্রিয়ার একটি অংশ।

তিনি বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে সরকার সবসময় জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ গ্রহণ করছে। উন্নত বিশ্বের দেশগুলো যে প্রক্রিয়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হচ্ছে আমাদের দেশেও সেই প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হবে। তবে অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম চলমান রয়েছে। শিক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার দিয়ে টিকাদান করা হচ্ছে। এমনকি উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশগামী শিক্ষার্থীদের বিশেষ ব্যবস্থাপনায় টিকাদান করা হচ্ছে।

একটি মহল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঘিরে ষড়যন্ত্র করছে দাবি করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সরকার যখন শিক্ষার্থীদের স্বাভাবিক শিক্ষাজীবনে ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে সব ধরনের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। তখন একটি মতলবি মহল এটিকে নস্যাৎ করার জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন্দ্রিক অস্থিরতা ও নৈরাজ্য সৃষ্টির লক্ষ্যে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।বর্তমানে বিএনপির নেতাকর্মীদের আচরণ ও উস্কানিমূলক বক্তৃতা-বিবৃতি পর্যালোচনা করলেই বোঝা যায় যে, তারা দেশ বিরোধী গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে চন্দ্রিমা উদ্যানে পুলিশের ওপর তাদের নেতাকর্মীদের হামলা ও মেট্রোরেলের যানবাহন ভাংচুরের ঘটনায় যার প্রতিফলন ঘটেছে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ এ দেশের স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ বিরোধী কোনো ষড়যন্ত্রকে ভয় করে না। যেকোনো ষড়যন্ত্রের দাঁতভাঙ্গা জবাব দেওয়ার রাজনৈতিক শক্তি আমাদের রয়েছে।

শেখ হাসিনা ছাত্র রাজনীতি নিয়মিত ছাত্রদের হাতে তুলে দিয়েছেন বলে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, অসুস্থ ধারার ছাত্ররাজনীতির বিপরীতে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে তিনি সেটি করেছেন।

তিনি বলেন, শিক্ষা এ দেশের মানুষের মৌলিক ও সাংবিধানিক অধিকার। এই অধিকার প্রতিষ্ঠায় শেখ হাসিনার সরকার সর্বদা বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে আসছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *