দুধের সঙ্গে কলা খেলে কী হয়?

লাইফস্টাইল ডেস্ক :

দুধের সঙ্গে কলা খাওয়ার প্রচলণ বহু পুরোনো। বাড়িতে অতিথি এলে শেষ পাতে দুধ-কলা খেতে দেওয়ার চিত্র বাঙালি বাড়িতে অতি পরিচিত। বর্তমানে জীবনযাপনে পরিবর্তন এসেছে। দুধ-কলা দিয়ে ভাত মাখিয়ে খাওয়ার বদলে হয়তো জায়গা করে নিয়েছে মিল্কশেক বা স্মুদি। কিন্তু কখনো কি ভেবে দেখেছেন, দুধ-কলা কতটা উপকারী? কিংবা এই দুই খাবার একসঙ্গে খেলে কোনো ক্ষতি হয় কি না?

কলা উপকারী ফল একথা সবারই জানা। এটি নানা পুষ্টিগুণে ভরা। এতে থাকা ফাইবার শরীরে শক্তি জোগানোর পাশাপাশি বিভিন্ন অসুখ থেকেও দূরে রাখে। অপরদিকে দুধ একটি পরিপূর্ণ খাবার। এতে থাকা ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি আমাদের শরীরের নানা উপকার করে। উপকারী এই দুই খাবার একসঙ্গে খেলে কী হয়? চলুন জেনে নেওয়া যাক

যারা ওজন বাড়াতে চান, তারা সাধারণত দুধ-কলা একসঙ্গে বেশি খেয়ে থাকেন। এই দুই উপাদান দিয়ে তৈরি শেক বা স্মুদি অনেকেরই পছন্দের। তবে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই দুই খাবার আলাদা আলাদা খেলে তা স্বাস্থ্যের পক্ষে ভীষণ উপকারী। তবে দুধ-কলা একসঙ্গে খাওয়ার বিষয়ে জোর গলায় পরামর্শ দিতে নারাজ তারা। বরং তারা দুধ-কলা দিয়ে তৈরি শেক পান করা থেকে বিরত থাকতে বলেন।

দুধে থাকেপ্রোটিন, নানান ভিটামিন, রাইবোফ্লোবিন, ভিটামিন বি১২-র মতো পুষ্টিকর উপাদান। ১০০ গ্রাম দুধে পাওয়া যায় প্রায় ৪২ ক্যালোরি। তবে দুধে ডায়েটারি ফাইবার, ভিটামিন সি থাকে না। এ ছাড়াও কার্বোহাইড্রেটও থাকে কম। এটি নিরামিষভোজীদের জন্য প্রোটিনের উল্লেখযোগ্য উৎস।

কলায় থাকে প্রচুর ভিটামিন বি৬, ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিন সি, ডায়েটারি ফাইবার, পটাশিয়াম ও বায়োটিন ইত্যাদি। ১০০ গ্রাম কলায় থাকে ৮৯ ক্যালরি। কলা খেলে তা দীর্ঘ সময় পেট ভরিয়ে রাখে এবং দ্রুত শক্তি বাড়ায়। এতে প্রচুর কার্বোহাইড্রেট থাকে। তাই শরীরচর্চার পর কলা খেলে মিলবে উপকার।

বেশিরভাগেরই ধারণা দুধ ও কলা একসঙ্গে খেলে তা বেশি স্বাস্থ্যকর। কারণ এই দুই খাবারে আলাদা আলাদা কিছু জরুরি পুষ্টি উপাদান থাকে। একসঙ্গে বেশি পুষ্টিলাভের আশায় অনেকেই দুধ-কলা মিশিয়ে খেয়ে থাকেন। তবে দুধ-কলা একসঙ্গে খেলেও তেমন কোনো উপকারিতা পাওয়া যায় না।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দুধ-কলা একসঙ্গে খেলে তা পাচনতন্ত্রকে প্রভাবিত করে। এর পাশাপাশি এটি ডেকে আনতে পারে সাইনাসকেও। সাইনাস সঙ্কুচিত হলে সর্দি, কফ, এলার্জির মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে। এই দুই খাবার দীর্ঘদিন ধরে একসঙ্গে খেলে পেটের সমস্যা দেখা দিতে পারে। সেইসঙ্গে দেখা দিতে পারে বমি, পাতলা পায়খানার মতো সমস্যা।

বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিচ্ছেন, ফল ও তরলের মিশ্রণ না খাওয়াই ভালো। আপনি যদি দুধ ও কলা একসঙ্গে মিশিয়ে খান তবে তা শরীরের টক্সিফিকেশনকে উদ্দীপিত করে। শরীরের স্বাভাবিক কার্যকলাপকেও প্রভাবিত করে। পাশাপাশি শরীর ভার অনুভূত হয় এবং মস্তিষ্ক দুর্বল হতে শুরু করে। সঠিক পুষ্টি পেতে দুধ ও কলা আলাদা আলাদা খান। এই দুই খাবার গ্রহণের মধ্যে অন্তত ২০-২৫ মিনিট পার্থক্য রাখুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *