প্রতারক-ভুয়া ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ঈশিতার বিরুদ্ধে ৩ মামলা

ঢাকা অফিস :

রাজধানীর মিরপুর থেকে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ও দেশি-বিদেশি সংস্থার ভুয়া প্রতিনিধি ও ভুয়া ব্রিগেডিয়ার জেনারেল পরিচয়ে প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার ইশরাত রফিক ঈশিতার বিরুদ্ধে তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

কথিত এ তরুণ চিকিৎসা বিজ্ঞানী ও গবেষক ঈশিতা ও তার সহযোগী দিদারের নামে সোমবার (২ আগস্ট) সকালে র‌্যাব-৪ বাদী হয়ে রাজধানীর শাহ আলী থানায় তিনটি মামলা দায়ের করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে র‌্যাব সদরদফতরের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক এএসপি আ ন ম ইমরান খান জানান, শাহ আলী থানায় ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে, প্রতারণার অভিযোগে ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ এর ২৩, ২৪ ও ৩৫ ধারায় মামলা হয়েছে।

শাহ আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসাদুজ্জামান জানান, দুই মামলায় পাঁচ দিন করে মোট ১০ দিনের রিমান্ড আবেদনসহ আসামি ডা. ঈশিতা ও দিদারকে বিকেলে আদালতে সোপর্দ করা হবে। তার বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এর আগে পুলিশের এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) হাতে রাজধানীর মিরপুর থেকে গ্রেফতার হন ভুয়া বিশেষজ্ঞ, ডিগ্রিধারী ও দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংস্থার ভুয়া প্রতিনিধি পরিচয় দেওয়া বহুমুখী প্রতারক ইশরাত রফিক ঈশিতা (আইপিসি)।

রোববার (১ আগস্ট) বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, র‌্যাব সদরদফতরের গোয়েন্দা শাখা ও র‌্যাব-৪ এর অভিযানে রোববার সকালে রাজধানীর শাহ আলী থানার মিরপুর-১ থেকে ঈশিতাকে (৩৪) সহযোগী শহিদুল ইসলাম ওরফে দিদারকে (২৯) গ্রেফতার করা হয়।

ময়মনসিংহের একটি বেসরকারি মেডিকেল কলেজ থেকে ২০১৩ সালে (সেশন ২০০৫-২০০৬) এমবিবিএস সম্পন্ন করেন ইশরাত রফিক ঈশিতা। পরের বছর অর্থাৎ ২০১৪ সালে মিরপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে যোগ দেন তিনি। তবে চার মাস চাকরি না করতেই শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে চাকরিচ্যুত হন। এরপরই শুরু হয় তার বহুমুখী প্রতারণা। এমপিএইচ, এমডি, ডিও-সহ নানা ভুয়া বিশেষজ্ঞ ডিগ্রি ব্যবহার শুরু করেন ঈশিতা। ভুয়া ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ হিসেবেও বিভিন্ন মতবাদ প্রচার করতে থাকেন তিনি। চিকিৎসাবিষয়ক বিভিন্ন ওয়েবসাইটের গবেষণাধর্মী প্রবন্ধ, আর্টিকেল বা থিসিস পেপারের ভুয়া প্রকাশনাও ব্যবহার করেন তিনি। এজন্য বিভিন্ন সাইটে প্রকাশিত চিকিৎসা শাস্ত্রে গবেষণাধর্মী প্রবন্ধ, আর্টিকেল বা থিসিস পেপারের ভুয়া প্রকাশনাও ব্যবহার করেন।

শুধু তাই নয়, তিনি নিজেকে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হিসেবেও পরিচয় দেন। করোনকালেও থামেনি তার প্রতারণা। দুই দফায় ৬০ চিকিৎসককে তিনি সেমিনারের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ দেন ও সার্টিফিকেট প্রদান করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *