প্রায় অর্ধেক দামে কেনা হচ্ছে কাঁচা চামড়া

ঢাকা অফিস :
লবণযুক্ত চামড়ার দরের চেয়ে প্রায় অর্ধেক দামে কাঁচা চামড়া কিনছেন আড়তদার ও ট্যানারি মালিকরা। আর তাই গতবারের মতোই লোকসানের ঝুঁকিতে পড়ছেন মৌসুমি ব্যবসায়ীরা। আছে সিন্ডিকেটের অভিযোগও। ক্ষোভ আর আফসোস রয়েছে প্রায় সব মৌসুমি ব্যবসায়ীদের, দাম পাচ্ছেন না কেউই।

সরকারি প্রতি বর্গফুট লবণযুক্ত গরুর চামড়ার দাম ঠিক করেছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা।  সেক্ষেত্রে কাঁচা চামড়ার দাম কত হতে পারে?

বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াৎ হোসেন বলেন, “যারা চামড়া সংরক্ষণ করে তারা বুঝে, একটি চামরা সংরক্ষণ করতে কত লাগবে। একটি চামড়া ২০০-৩০০ টাকা লাগবে। সেভাবেই তারা চামড়া সংগ্রহ করছে।”

বাংলাদেশ হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্টস অ্যাসোসিয়েশন এর সভাপতি মোহাম্মদ আফতাব খান বলেন, “প্রতি স্কয়ারফিটে যাবতীয় খরচসহ আমাদের প্রতি স্কয়ার ফিট ৮টাকা খরচ হয়। ৪০ টাকা থেকে ৮টাকা বাদ দিলে আমাদের প্রতি স্কয়ারফিট কেনা উচিৎ ৩২ টাকায়।”

প্রতি বর্গফুট ২৭ থেকে ৩২ টাকাতেও কেনা হচ্ছে না। মাঝারি আকারের অর্থাৎ ২০ থেকে ২২ বর্গফুটের একেকটি গরুর চামড়া বিক্রি হচ্ছে ৪০০ থেকে সাড়ে চারশ টাকায়। প্রতিবর্গফুটের দাম পড়ছে ২০ থেকে ২৩ টাকা।

একদিকে চামড়ার লোকসানি দাম, সাথে যোগ হয়েছে ঘন্টা দুয়েকের বৃষ্টি। পানিতে কাঁচা চামড়ার হেয়ার স্লিপের শঙ্কা বেড়ে যায়। সেই সঙ্গে স্থায়ী দাগও পড়ে। যে কারণে, দাম আরো কমার শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *