বঙ্গবন্ধু বারট্রান্ড রাসেলের বই পড়ে শোনাতেন বঙ্গমাতাকে

ঢাকা অফিস :

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বারট্রান্ড রাসেলের বই পড়ে বাংলা করে শোনাতেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবকে।

আজ শিক্ষা মন্ত্রণালয় আয়োজিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাত বার্ষকী উপলক্ষ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয় আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এ কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকীর ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপ মনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু পরিবারের সকলে রাজনীতি করতেন এবং পড়াশোনা করতেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইডেন কলেজে রাজনীতি ও লেখাপড়ার পাশাপাশি বেহালা বাজাতেন।’

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, এমপি বলেন, ‘বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা অল্প হলেও বই পড়ার প্রতি তার আগ্রহ ছিলো। আমরা যদি সেই সময়টায় দেখি— একজন মানুষ স্বল্প শিক্ষিতা, প্রাতিষ্ঠানিক তেমন কোনও শিক্ষা পাননি, ১০ বছর বয়সে পর বাড়িতেই পড়েছেন। নিজে গিয়ে নিউ মার্টেক থেকে বই কিনে নিয়ে আসতেন। স্বামী মুজিব যখন জেলাখানা থেকে চিঠি লেখেন, চিঠিতে ছেলেমেয়েদের লেখাপড়ার কথা বলেন— হাসু-কামাল যেন লেখাপড়া করে। একই সঙ্গে তার স্ত্রীকেও বলছেন—তুমি পড়াশোনাটা করবে। বঙ্গমাতার শুধু পড়াশোনা করার আগ্রহ ছিলো তাই নয়, বঙ্গবন্ধু তাকে পড়াশোনায় অনুপ্রাণিত করতেন। ক’টি বাড়িতে এমনটা দেখবো যে. রাজনীতিক স্বামী (বঙ্গবন্ধু) পড়ছেন, শুধু্ আমাদের ইতিহাস নয়, সারা বিশ্বের সাহিত্য পড়ছেন, দর্শন পড়ছেন। আমরা দেখি বঙ্গবন্ধুর পছন্দ বারট্রান্ড রাসেলের লেখা ইংরেজিতে পড়ছেন এবং সেটা অনুবাদ (বাংলায়) করে স্ত্রীকে শোনাচ্ছেন।‘

আলোচনা সভায় শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ‘স্বাধীন দেশে শিক্ষার একটি সামগ্রিক দিক নির্দেশনা দিয়ে গেছেন বঙ্গবন্ধু। আমরা যেনও তার দেখানো পথে চলতে পারি।’

মন্ত্রণালয় আয়োজিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাত বার্ষকীর ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (পিএসসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *